উপ-নির্বাচনে স্থগিতাদেশ ইসির ব্যর্থতা

0 330


নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপ-নির্বাচন নিয়ে আদালত যে স্থগিতাদেশ দিয়েছে তা সম্পূর্ণভাবে নির্বাচন কমিশনের ব্যর্থতা বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, একই সঙ্গে আমরা মনে করি এটা উদ্দেশ্যমূলক। তাদের (নির্বাচন কমিশন) আগেই সবকিছু ঠিকঠাক করা উচিত ছিল। ডিএনসিসির নির্বাচন নিয়ে হাইকোর্টের তিন মাসের স্থগিতাদেশের প্রতিক্রিয়ায় বুধবার (১৭ জানুয়ারি) দুপুরে বাংলানিউজকে এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, যার ভিত্তিতে রিট করা হয়েছে এবং আদালত রুল জারি করেছেন তাতে যদি কোনো ঘাটতি থাকে, তাহলে তার দায়ভার তো নির্বাচন কমিশনের। এই রিট তো এক বছর আগেই করা হয়েছিল। তাহলে গত এক বছরে তারা কী করলেন? যে সমস্যা আছে তার সমাধান করা তো উচিত ছিল। অথচ এক বছরেও নির্বাচন কমিশন কেন পদক্ষেপ নেননি।

নির্বাচন যেন না হয় সরকারের এমন মনোভাব ছিল জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, আর সরকার তো এটাই চাচ্ছিল যে, নির্বাচন বন্ধ হয়ে গেলে তাদের জন্যই ভালো। একদিকে নির্বাচন কমিশনের ওই নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নির্বাচন করতে হবে। অন্যদিকে নির্বাচনের সুযোগ দিয়ে সেই নির্বাচন বন্ধ করেছে।

নির্বাচন বন্ধের কারণ সম্পর্কে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এই নির্বাচন বন্ধ করার কারণ হচ্ছে, আমরা নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আমাদের প্রার্থীকে নিয়ে জনগণের কাছে যেতে পারতাম। জনগণ আমাদের সঙ্গে সম্পৃক্ত হতো। আমরা মনে করি, জনগণ যে রায় দিতো সে রায় আমাদের পক্ষেই আসতো। জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সেটা তারা চায় না বলেই এটা করেছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.