Take a fresh look at your lifestyle.

কথাটা ওভাবে বলেননি সাকিব!

0 132

মাত্র ২০-৩০ ভাগ ফিটনেস নিয়ে কীভাবে এশিয়া কাপে খেলবেন সাকিব আল হাসান? বিশেষ করে তিনি নিজেই যখন বুঝতে পারছেন না এই ফিটনেস নিয়ে ব্যাটিং-বোলিং করবেন কীভাবে! কাল সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রশ্নটা ছিল বিসিবিরও। দুদিন আগে একটি ইংরেজি দৈনিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নিজের ফিটনেস নিয়ে করা সাকিবের এ মন্তব্যের পর বিসিবিও তাঁকে ধরে নিচ্ছিল ‘আনফিট’। কিন্তু সাকিবের এক ই-মেইলের পর রাতেই ‘ইউটার্ন’।

সূত্র জানিয়েছে, বিসিবিকে পাঠানো ই-মেইলে সাকিব দাবি করেছেন, নিজের ফিটনেস নিয়ে সংশয় প্রকাশ করলেও ব্যাটিং-বোলিং করতে পারবেন না, এমন কথা তিনি বলেননি। এমনকি সাক্ষাৎকারটিকেও বলেছেন ‘হালকা কথোপকথন’। বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন চৌধুরী নিশ্চিত করেছেন সাকিবের ই-মেইলের বিষয়টি, ‘সাকিব আমাদের জানিয়েছেন, তিনি ওভাবে কথাগুলো বলেননি। তাঁর বক্তব্য ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। দলের আগেই তিনি দুবাই পৌঁছে যাবেন।’

সাকিবের ফিটনেসের কথা ভেবে অবশ্য এর আগেই এশিয়া কাপের ১৫ সদস্যের দলের সঙ্গে ১৬ তম সদস্য হিসেবে যোগ করা হয় মুমিনুল হককে। অর্থাৎ সাকিব দলের সঙ্গে যাচ্ছেন, থাকবেন মুমিনুলও। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানকে উদ্ধৃত করে দুপুরে মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুসই জানান সেটি, ‘সে (সাকিব) যদি এশিয়া কাপে যেতে চায়, আমরা বাধা দেব না। কিন্তু ২০-৩০ ভাগ ফিট মানে সে খেলার মতো অবস্থায় নেই, আনফিট। তার খেলা উচিত হবে না। দলের সঙ্গে তাই ১৬ তম সদস্য হিসেবে মুমিনুল হককে পাঠানো হচ্ছে।’

সাকিবের ফিটনেস-সংক্রান্ত আলোচনায় বেশ বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে গিয়েছিল বিসিবি। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কী করবে না করবে, তা নিয়ে হয়ে পড়েছিল কিছুটা বিভ্রান্তও। জালাল ইউনুসের কথায়ও বোঝা গেছে তা, ‘আমেরিকা যাওয়ার আগেও সাকিব বলেনি তাঁর হাতে ব্যথা, খেলতে পারবে না। ২০-৩০ ভাগ ফিট হলে আগে তা বোর্ডকে বলা উচিত ছিল। ও ঠিক কাজ করেনি। আমাদের একটা বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে ফেলে দিয়েছে।’

কোচ স্টিভ রোডস অবশ্য মনে করছেন, সাকিবের কথাটাই ছিল ভুল, ‘আমি বিশ্বাস করি না সে মাত্র ২০-৩০ ভাগ ফিট। আমার মনে হয় ও এর চেয়েও অনেক বেশি ফিট।’ কোচের এমন ভাবনার পেছনে কাজ করছে ওয়েস্ট ইন্ডিজে সাকিবের পারফরম্যান্স। এই চোট নিয়েই তো জুলাই-আগস্টের সফরে দারুণ খেলে এলেন সাকিব! দলের সঙ্গে তাঁর অনুশীলন না করাতেও কোনো সমস্যা দেখছেন না কোচ।

অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাও সাকিবের ফিটনেস মূল্যায়ন করছেন সর্বশেষ সিরিজের পারফর

রম্যান্স দিয়ে, ‘আপনি যদি সাকিবের পারফরম্যান্স (ওয়েস্ট ইন্ডিজে) দেখেন, তাহলে বলতে হবে আমাদের জয়ের জন্য সে অনেক বড় ভূমিকা পালন করেছে। আমার কাছে মনে হয় ও অতটুকু সুস্থ থাকলেই সেটা দলের জন্য যথেষ্ট।’

তবে এশিয়া কাপে খেলা বা না খেলার চূড়ান্ত সিদ্ধান্তটা সাকিবকেই নিতে হবে মনে করেন ওয়ানডে অধিনায়ক, ‘সিদ্ধান্তটা সাকিবের। এখানে কারও হাত নেই। সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর অজুহাতের কোনো জায়গা থাকার কথা না। সে যখন খেলবে, তখন শতভাগ দিয়েই খেলবে।’

বিসিবিকে পাঠানো ই-মেইলের পর সাকিবের সে সিদ্ধান্তও এখন জানা।

Leave A Reply

Your email address will not be published.